ডেনিম ও জিন্স এর পার্থক্য (Difference Between Denim and Jeans)

denim-and-jeans

এই পোষ্টের মাধ্যমে আমরা ডেনিম ও জিন্সের পার্থক্য সম্পর্কে জানতে পারবো।

ডেনিম (Denim)

ডেনিম ফেব্রিক ১০০% কটন টুইল বা স্টেচ টুইল দ্বারা তৈরি হয়। ডেনিম হলো গঠনের মজবুত গঠনের ওয়ার্প ফেস টুইল ফেব্রিক। ডেনিম ফেব্রিককে ওয়েফ্ট ইয়ার্ন দুই বা ততোধিক ওয়ার্প ইয়ার্ন নিচে দিয়ে যায়। এই কারণেই ডেনিম এর সারফেসে একটি কালার প্রাধান্য পায়।

কিন্তু ডেনিম ফেব্রিকে বিভিন্ন ধরনের রং এর ওয়ার্প ও ওয়েফ্ট ইয়ার্ন  থাকতে পারে। পুরো পৃথিবীজুড়ে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস শার্ট, জিন্স, জ্যাকেট, ব্যাগ, পার্স সহ নানা ধরনের অ্যাকসেসোরিস তৈরি করা হয় ডেনিম ফেব্রিক দ্বারা।

জিন্স (Jeans)

জিন্স এক ধরনের পোশাক। যা বর্তমান যুগে সব বয়সের মানুষকেই ব্যবহার করতে দেখা যায়। ১৯ শতকের শেষের দিকে জিন্স পোশাকটি পরিচিতি লাভ করে কপার রিভেটেড কটন ট্রাউজার এর মধ্য দিয়ে। বর্তমানে জিন্স পোশাকের জনপ্রিয়তা অনেক বেশি কারণ এই পোশাক পরতে আরামদায়ক।

বর্তমান তরুণ সমাজের প্রায় সবাই জিন্স ব্যবহার করে। নীল রং জিন্সের একটি স্বঃতন্ত্র বৈশিষ্ট্য কিন্তু বর্তমান বাজারে বিভিন্ন কালারের জিন্স পাওয়া যায়। জেমস পোশাক তৈরিতে ডেনিম ফেব্রিক ব্যবহার করা হয়। জিন্স বলতে ডেনিম ফেব্রিক দ্বারা তৈরিকৃত পোশাক কে বোঝানো হয়েছে।

ডেনিম ও জিন্স এর কিছু বৈশিষ্ট্য (Some Features of Denim and Jeans)

  1. ডেনিম ফেব্রিক ধারা তৈরিকৃত পোশাক খুব শক্তিশালী এবং অনেকদিন ব্যবহার করা যায়।
  2. এই ফেব্রিকে সহজে ক্রিজ পরেনা।
  3. ডেনিম ১০০% কটন দ্বারা তৈরি কিন্তু মাঝে মাঝে হেম্প ডেনিম ও পাওয়া যায়।
  4. ডেনিম ফেব্রিকে ভ্যাট ও সালফার ডাই ব্যবহার করা হয় বিধায় পোশাক পরিধানের গরম লাগে না, কিন্তু রি-এ্যাকটিভ ডাই ব্যবহার করা হলে ব্যাপারটা ভিন্ন হবে।
  5. ডেনিম ফেব্রিক ধারা তৈরিকৃত পোশাক পরিধানে শক্ত ও সুরক্ষা দেয়।
  6. জিন্স আয়রনিং ছাড়াই পরিধান করা সম্ভব
  7. অন্য কোনো পোশাকের তুলনায় জিন্স বারবার ওয়াশিং করার প্রয়োজন হয় না।
  8. জিন্স এক ধরনের ফ্যাশন্যাবল পোশাক।

টেক্সটাইল বাংলায় আপনাকে স্বাগতম!

আপনার লেখা টেক্সটাইল বাংলায় পাবলিশ করবেন কিভাবে?

 

1 thought on “ডেনিম ও জিন্স এর পার্থক্য (Difference Between Denim and Jeans)”

Comments are closed.