ওসামা বিন লাদেনকে আমেরিকা কিভাবে ট্র্যাক করেছিল

আমেরিকার সর্বপ্রথম ওসামা বিন লাদেনের ফেভারিট কুরিয়ারের গোপন নাম ‘র’ এজেন্ট এর সাহায্যে বের করে ফেলেছিল।

নামটি ছিল – আবু আহমেদ আল কুয়েতি

অনেক সার্চ করার পর আমেরিকার ইন্টেলিজেন্ট জানতে পারে আবু আহমদ আবোতাবাদ পাকিস্তানের মধ্যে রয়েছে। আমেরিকার ইন্টেলিজেন্ট এজেন্সি আবু আহমেদকে ট্র্যাক করতে থাকে। আবু আহমেদকে ট্রাকিং করার পর দেখতে পায় সে খুব বড় একটি ঘরে বাস করে। কিন্তু সে যখনই মোবাইলে কথা বলে তখন সে ঘর থেকে ২.৫ ঘন্টা দূরের পথ অতিক্রম করে মোবাইল ফোনে ব্যাটারি ভরে তারপর কল করে। 

একবার আবু আহমদ দূরে গিয়ে তার বন্ধুকে কল করে। এই কল কে আমেরিকার এজেন্ট ট্র্যাক করছিল। তার বন্ধু তাকে বারবার একই প্রশ্ন করছিল ‘তুই কোথায় এখন কি করিস’। আবু আহমদ এর ইনস্ট্রাকশন ছিল যে সে কাউকে কিছু বলতে পারবে না কোন কিছুই না। কিন্তু তার বন্ধু তাকে অনেকবার বলার পরে সে আর চুপ করে থাকতে পারলো না সে বলে দিল – আমি যেখানে থাকার কথা সেখানে আছি, যেখানে আমি প্রথমে কাজ করতাম সেখানে আছি।

তারপর তার বন্ধু একটু চুপ থাকল এবং বলল আল্লাহ তোমায় সাহায্য করুক। এবং এতটুকু ইনফর্মেশনই আমেরিকার জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ ইনফর্মেশন ছিল। এতটুকু কথার কারণে আমেরিকার ইন্টেলিজেন্টের পুরো টিম তার ওপরে ১০০% সন্দেহ করেছিল যে আবু আহমদই ওসামা বিন লাদেনের সাথেই থাকে আর ওসামা বিন লাদেন ওই ঘরেই থাকে যেই ঘরে আবু আহমেদ থাকে।

তারপর তো বাকিটা আমরা সবাই জানি, আমেরিকা ডিসিশন নিয়েছে যে তারা ওই ঘরে যাবে। তারা দুইটি ব্লাক হগ হেলিকপ্টার পাঠিয়েছিল ওসামা বিন লাদেনকে মারার জন্য। 


পোস্টটি পড়ার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ

আরো ভালো ভালো পোস্ট পেতে টেক্সটাইল বাংলার সাথেই থাকুন।

টেক্সটাইল বাংলায় আপনাকে স্বাগতম!

আপনার লেখা টেক্সটাইল বাংলায় পাবলিশ করবেন কিভাবে?

Share your love
Maruf Sikder
Maruf Sikder

মোঃ মারুফ সিকদার। একজন টেক্সটাইল ইন্জিনিয়ার। টেক্সটাইল ছাত্র ছাত্রীদের কথা বিবেচনা করে শুরু করা টেক্সটাইল বাংলা। ব্যস্ততার পাশাপাশি টেক্সটাইলের বিভিন্ন বিষয়াদি আলোচনা করি টেক্সটাইল বাংলায়। আপনাদের জন্য এই ছোট প্রয়াস যেনো নিয়মিত কিছু করার প্রয়াস যোগায়। অবশ্যই টেক্সটাইল বাংলার সাথে থাকুন।

Articles: 701