মাইক্রোনিয়ার ভ্যালু (Micronaire Value)

এই পোস্টটি স্পিনিং বিভাগের কর্মকর্তা/স্টুডেন্টদের জন্য।

তুলোর সাথে মাইক্রোনিয়ার শব্দটি ওতপ্রোতভাবে জড়িত। কেননা সুতা তৈরি বা কাউন্টের ক্ষেত্রে মাইক্রোনিয়ার প্রভাব বিস্তার করে থাকে।

মাইক্রোনিয়ার ভ্যালু কি?

তুলার আঁশ কতটুকু মোটা বা চিকন হবে তাই মাইক্রোনিয়ার ভ্যালু। এই মাইক্রোনিয়ারের ভ্যালু কে সংক্ষেপে (MIC Value) দ্বারা প্রকাশ করা হয়।

মাইক্রোনিয়ার মান

Micronaire Value

ফাইবার কে ইঞ্চি প্রতি প্রকাশ করাকে মাইক্রোনিয়ারের মান বলে। তাই সংক্ষেপে (MIC) বলা হয়। মাইক্রোনিয়ারের মান আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত। মাইক্রোনিয়ারের মান দ্বারা ফাইবারের সূক্ষ্মতা ও পরিপক্কতা জানা যায়। এছাড়াও ফাইবারের মাইক্রোনিয়ারের মান যত বেশি হবে উক্ত ফাইবার তত মোটা হবে। এবং ফাইবার যত চিকন হবে মাইক্রোনিয়ারের মান তত কম হবে।

মাইক্রোনিয়ার মান ও ফাইবারের শ্রেণীর চার্ট

মাইক্রোনিয়ার মানফাইবারের শ্রেণী
৩.০ বা তার নিচেঅত্যন্ত সূক্ষ্ম
৩.০ থেকে ৩.৯ভালো
৪.০ থেকে ৪.৯মোটামুটি
৫.০ থেকে ৫.৯স্থূল
৬.০ এর উপরেঅত্যন্ত স্থূল
Table

মাইক্রোনিয়ারের গুরুত্ব

  • নির্দিষ্ট কাউন্টের সুতা তৈরি করতে আঁশ সংমিশ্রণে মাইক্রোনিয়ার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।
  • মাইক্রোনিয়ারের মান যত বেশি হবে সুতার ইরেগুলারিটির হার তত বৃদ্ধি পাবে।
  • মাইক্রোনিয়ারের মান স্পিনিং প্রসেসিংয়ে প্রভাব বিস্তার করে।
  • ফেব্রিকের এয়ার পারমিয়্যাবিলিটি এবং ফাইবারের পরিপক্বতার ক্ষেত্রে এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

ব্লিচিং সম্পর্কে জানতে – ক্লিক করুন

মনোফিলামেন্ট । মাল্টিফিলামেন্ট সম্পর্কে জানতে – ক্লিক করুন

Leave a Comment