গার্মেন্টস কোয়ালিটি প্রশিক্ষণ

গার্মেন্টস কোয়ালিটি প্রশিক্ষণ

এই পোষ্টের মাধ্যমে গার্মেন্টস কোয়ালিটি প্রশিক্ষণ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন।

বাংলাদেশের পোশাকশিল্প খুবই বড়। পোশাক শিল্পের মধ্যে সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ সেক্টর হচ্ছে কোয়ালিটি সেক্টর। কোয়ালিটির উপর নির্ভর করেই টিকে রয়েছে বাংলাদেশের টেক্সটাইল সেক্টর বা পোশাক শিল্প। 

প্রতিনিয়ত বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে বিভিন্ন ছোট ছোট শিল্প টেক্সটাইল রিলেটেড কারখানা বেড়ে উঠছে। এই কারখানাগুলোতে রয়েছে কোয়ালিটি ম্যানের অনেক চাহিদা। কোয়ালিটি ম্যানের অনেক চাহিদা থাকা সত্বেও দক্ষ কোয়ালিটি মেন পাওয়া যায় না। তাই এটা খুব বড় একটা অপরচুনিটি নতুনদের জন্য। যারা কোয়ালিটিতে দক্ষ তাদের বেতনও অনেক বেশি। 

তাই দক্ষ হয়ে কোন একটা কোম্পানিতে ঢুকতে পারলে অনেক ভালো সুযোগ-সুবিধা পাওয়া যায়। তাই প্রথমেই কোন একটি গার্মেন্টস কোয়ালিটি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে প্রশিক্ষণ নিয়ে  ভালো একটা কোম্পানিতে চাকরির জন্য আবেদন করলে অনেক বেশি ভালো হয়।

  •  কোয়ালিটি ট্রেনিং সেন্টারে কি-কি শিখায়।
  • পণ্যের সঠিক মান কিভাবে নিশ্চিত করা।
  • অপচয় রোধ কিভাবে করা যায়।
  • ক্রেতারা কি রকম পণ্য বেশি গ্রহণ করবে তার সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যায়।
  • উৎপাদন খরচ কিভাবে কমানো যায় তা নিশ্চিত করা। 
  • বায়ারের ইন্সট্রাকশন অনুযায়ী পণ্য তৈরি করা। 
  • গার্মেন্টস কোয়ালিটি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র কোথায়

বর্তমানে গার্মেন্টস কোয়ালিটি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে গড়ে উঠেছে। কিছু কিছু ট্রেনিং সেন্টার আছে যারা সরকারিভাবে ট্রেনিং করে আবার কিছু কিছু ট্রেনিং সেন্টার বেসরকারিভাবে ট্রেনিং করায়। যারা বেসরকারিভাবে ট্রেনিং করায় তারা সাধারণত ৫ থেকে ৬ হাজার টাকার মধ্যে কোর্স কমপ্লিট করায়। আর যেই কোর্স সরকারিভাবে হয় তাতে সাধারণত কোন টাকার প্রয়োজন হয় না কিন্তু ভর্তি হবার সময় কিছু ফি এর প্রয়োজন হয়। 

সরকারি ট্রেনিং সেন্টার

যদি আপনি সরকারি ট্রেনিং সেন্টারে গার্মেন্টস কোয়ালিটি প্রশিক্ষণ নিতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে খোঁজ রাখতে হবে বাংলাদেশ বিসিক ভবনে। কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের  আন্ডারে বিভিন্ন কোর্স চলে আপনাকে শুধু জানতে হবে যে গার্মেন্টস রিলেটেড কোর্স কখন চলবে।

যখনই গার্মেন্টস রিলেটেড কোন কোর্স চলবে তখন আপনি আবেদন করতে পারবেন। আবেদন সাধারণত অনলাইন এবং অফলাইন দুইভাবেই করা যায়। আবেদন করার জন্য প্রয়োজন হয় ভোটার আইডি কার্ড, এসএসসির সার্টিফিকেট, চেয়ারম্যান সার্টিফিকেট, দুই কপি ছবির প্রয়োজন হয়।

বেসরকারি ট্রেনিং সেন্টার

বেসরকারি ট্রেনিং সেন্টার আপনি বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে দেখতে পাবেন। অবশ্যই বেসরকারি ট্রেনিং সেন্টারে প্রবেশ করার আগে ট্রেনিং সেন্টার সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিবেন অনলাইন অফলাইন যেভাবে পারেন।

কারণ এখানে প্রতারিত হওয়ার অনেক সুযোগ থেকে যায়। যদি খোঁজ নিয়ে ভালো ট্রেনিং সেন্টারে ভর্তি হতে পারেন তাহলে অবশ্যই ট্রেনিং সেন্টার থেকে অনেক কিছু শিখতে পারবেন। 

ট্রেনিং এ যা শিখাবে 

  • কোয়ালিটির প্রসেস শিখাবে।
  • কোয়ালিটিতে কিভাবে কাজ করতে হবে তা শিখাবে।
  • ফেব্রিক এর মধ্যে কি কি ত্রুটি হয় তা শেখাবে।
  • ফেব্রিকের গুণগত মান ঠিক রাখার  ধারণা। 
  • পোশাকের র-মেটারিয়ালস সম্পর্কে  ধারনা পাবেন। 
  • একটি পোশাকের মধ্যে কি কি ত্রুটি থাকে তা জানতে পারবেন।
  • ফ্লোরে সিনিয়রদের সাথে কি রকম সম্পর্ক বজায় রাখতে হবে তার ধারণা পাবেন। 

গার্মেন্টস কোয়ালিটি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে থেকে প্রশিক্ষণ নিলে অবশ্যই আপনি এক্সপার্ট হতে পারবেন। আর প্রতিটি ট্রেনিং সেন্টার থেকে কোর্স কমপ্লিট করলে অবশ্যই আপনাকে একটি সার্টিফিকেট দেওয়া হবে যা দ্বারা আপনি খুব সহজেই যে কোন কোম্পানিতে চাকরির আবেদন করতে পারবেন এবং অন্যান্যদের থেকে আপনার সিভি অনেক ভালো হবে।


পোস্টটি পড়ার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ

আরো ভালো ভালো পোস্ট পেতে দেখছেন বাংলা সাথেই থাকুন

টেক্সটাইল বাংলায় আপনাকে স্বাগতম!

আপনার লেখা টেক্সটাইল বাংলায় পাবলিশ করবেন কিভাবে?