পলিটেকনিকে ভর্তি হবার আগে যে তথ্যগুলো জানা উচিত

আমি আপনাদের কাছে এমন কিছু তথ্য শেয়ার করব, যাতে করে আপনাদের পলিটেকনিকে ভর্তি হবেন কি হবেন না তার ডিসিশন নিতে সাহায্য করবে।

আমিও পলিটেকনিক থেকেই টেক্সটাইল সাবজেক্ট নিয়ে চার বছরের ডিপ্লোমা কোর্স কমপ্লিট করেছি। তাই আমার কিছু বাস্তব অভিজ্ঞতা আপনাদের সাথে শেয়ার করছি।

ভর্তি

পলিটেকনিক ভর্তি হবার আগে, অনেকেই অনেকের কাছে সাবজেক্ট নির্বাচনের জন্য প্রশ্ন করে থাকেন। একেকজন একেক রকম পরামর্শ দেয়, কিন্তু সবার আগে নিজে সাবজেক্ট গুলো দেখেন কোনটা আপনার থেকে বেশি ভালো লাগে, মনে রাখবেন প্রত্যেকটা সাবজেক্টে ভালো যদি আপনি বাছাইকৃত সাবজেক্টি ভালোভাবে মনোযোগ দিয়ে কমপ্লিট করেন।

তারপরও কি কি সাবজেক্ট স্পেশাল সরকারি চাকরির জন্য।

পড়াশোনা

পলিটেকনিক হলো কারিগরি শিক্ষা বোর্ড কারিগরি শিক্ষা বলতে আমরা বুঝি হাতে-কলমে কাজ শেখানো হয় এরকম কিছু কিন্তু এটা ভুল ধারণা। পলিটেকনিকে মূলত ৭৫% থিওরি আর বাকি ২৫% প্র্যাকটিক্যাল কিন্তু এটি কোন চিন্তার বিষয় না। ৭৫% থিউরি ভালো করে শেষ করলে ২৫ % প্র্যাকটিক্যালই যথেষ্ট একজন ভালো ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার হওয়ার জন্য।

পরীক্ষা

কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের ছয় মাস পরপর পরীক্ষা হয়। মানে চার বছরে মোট আটটি পরীক্ষা হবে। প্রত্যেক তিন মাস অন্তর অন্তর মিডট্রাম পরীক্ষা হবে। পলিটেকনিকের এক্সাম রেজাল্ট অনেক কিছুর উপরে নির্ভর করে, ক্লাস টেস্ট, ক্লাস অ্যাটেনডেন্স, প্রাক্টিক্যাল, মিডটার্ম এক্সাম, সেমিস্টার ফাইনাল এক্সাম। এরকম অনেকগুলো ধাপের মন মানসিকতা নিয়েই পলিটেকনিকে ভর্তি হওয়া উচিত। নয়তোবা পরীক্ষায় পাস করা সম্ভব কিন্তু ভালো রেজাল্ট করা সম্ভব না।

উচ্চশিক্ষা

অনেকেরই ধারণা যে পলিটেকনিক এ পড়ার পর উচ্চশিক্ষা কোন স্কোপ থাকেনা। পলিটেকনিক থেকে আপনি চাইলে উচ্চশিক্ষা গ্রহণ করতে পারবেন।আবার আপনি চাইলে পলিটেকনিক থেকে ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্স কমপ্লিট করে বাংলাদেশের বাইরে গিয়েও উচ্চ শিক্ষা গ্রহণ করা যায়।


প্রয়োজনীয় কিছু লিংক।

ট্রিমিংস সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে – ক্লিক করুন

সেলাই মেশিন সম্পর্কে জানতে – ক্লিক করুন

টেক্সটাইল ফিনিশিং সম্পর্কে জানতে – ক্লিক করুন

ফাইবার টেস্ট কী জানতে – ক্লিক করুন

আপনার মূল্যবান সময় দিয়ে পোস্টটি পড়ার জন্য ধন্যবাদ।

লেখক :- মামুন বেপারী।
শিক্ষক

4 thoughts on “পলিটেকনিকে ভর্তি হবার আগে যে তথ্যগুলো জানা উচিত”

Leave a Comment