ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদের নিয়ে কিছু ভুল ধারনা

আমাদের দেশে ৩০% মানুষই ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদের নিয়ে ভুল ধারণা পোষণ করে থাকে তার বাস্তব উদাহরণ প্রত্যেকটি ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদের কাছেই আছে।

আমাকে দিয়েই বোঝাই, আমি যখন পলিটেকনিকে ভর্তি হবার আগে প্রায় ৮ – ৯ জনের কাছে পরামর্শ চেয়েছিলাম। তাদের মধ্যে ৩ তিনজন আমাকে সরাসরি বলেছে যে ডিপ্লোমা করিছ না, “এইচএসসি পরীক্ষা দিয়া পুলিশের চাকরিতে জয়েন কর লাইফ কিলিয়ার”। কিছু লোক আমাকে ডিপ্লোমা সম্পর্কে ভাল পরামর্শ এবং ডিপ্লোমা করলে কী কী লাভ হবে তা বুঝাইছে, যা ভবিষ্যতে আমার অনেক কাজে লেগেছিল। আবার কেউ কেউ আমাকে ডিপ্লোমার বিভিন্ন খারাপ দিক তুলে ধরে বলেছে ডিপ্লোমার কোন দাম নাই পলিটেকনিকে পড়ে হুদাহুদি টাকা নষ্ট করিস না ভালা পরামর্শ দিলাম

[ যাক সবাই সবার নিজের পার্সোনাল অপিনিওন আমার সাথে শেয়ার করেছে। কারো কারো কাছ থেকে আমি মোটিভেশন পেয়েছি আবার কারো কাছ থেকে পেয়েছি ডি মোটিভেশন ]

Note. এখানে আমার অনেক ভুল ছিল, আমি যাদের কাছে গিয়েছিলাম তারা বেশিরভাগই ডিপ্লোমা সম্পর্কে অনভিজ্ঞ ছিল। সুতরাং আপনারা যদি ডিপ্লোমা সম্পর্কে কোনো পরামর্শ চান তাহলে অবশ্যই অভিজ্ঞ লোক থেকেই পরামর্শটা চাইবেন।

এবার দেখা যাক মানুষ কী কী ভুল ধারণা রাখে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং সম্পর্কে।

  • ডিপ্লোমা আর এইচএসসি সমান।
  • খারাপ ছাত্ররা ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং করে।
  • না পড়ে পরীক্ষায় পাস করা যায়।
  • যাদের আর্থিক অবস্থা খারাপ তারা ডিপ্লোমা করে।
  • ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদের বেতন কম।
  • বিএসসি না করলে কোন লাভ নেই।
  • ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদের চাকরি হয় না
  • উচ্চশিক্ষার সুযোগ নেই।

ডিপ্লোমা আর এইচএসসি সমান

ডিপ্লোমা এইচএস এর মান সম্মান একথাটা প্রায় সবাই বলে। কিন্তু তফাতটা দেখা যায় চাকরির ক্ষেত্রে গিয়ে। চাকরির ক্ষেত্রে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার দ্বিতীয় শ্রেণীর চাকরি পায়, আর এইচএসসি পাস করা ছাত্ররা তৃতীয় শ্রেণির চাকরি করে।

খারাপ ছাত্ররা ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং করে

সরকারি ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং করার জন্য, ৪ পয়েন্ট এর প্রয়োজন হয় তার পরবর্তী ভর্তি পরীক্ষা দিতে হয় বিভিন্ন রকম গণ্ডি পেরিয়ে এডমিশন নিতে হয়। এবার আপনিই বলেন ভাই, কোন দিক দিয়ে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং খারাপ ছাত্ররা করে?

না পড়েও পরীক্ষায় পাস করা যায়

যারা ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং সম্পর্কে কোন ধারণা নেই একমাত্র তাঁরই এরকম ধারণা হতে পারে। ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং এর ক্ষেত্রে ৬ মাস পরপর সেমিস্টার ফাইনাল হয়। আর তিন মাস পর পর মিডট্রাম পরীক্ষা হয়। আবার তো ক্লাস টেস্ট বিভিন্ন ধরনের পরীক্ষার সম্মুখীন হতে হয়।

যাদের আর্থিক অবস্থা খারাপ তারা ডিপ্লোমা করে

এই ধারণাটাও সম্পূর্ণ ভুল, সরকারি তে ডিপ্লোমা করলে কম খরচ লাগলেও বেসরকারিতে প্রায় ২.৫০ লাখের মতো খরচ হয়ে যায়। আবার তো হাত খরচ আছেই।

ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদের বেতন কম

ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদের বেতন কম কথাটা সত্যি, কিন্তু সব ইঞ্জিনিয়ারদের বেতন প্রত্যেক বছরই বারে। 

বিএসসি না করলে কোন লাভ নেই

বিএসসি না করলে কোন লাভ নেই এই কথাটা আমি অনেক ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদের মুখে শুনেছি। ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার এর মান আলাদা, বিএসসি ইঞ্জিনিয়ার এর মান আলাদা।

ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদের চাকরি হয় না

যারা বলে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদের চাকরি হয় না তাদের কথাটা প্রশ্নবিদ্ধ থেকে যায়। কারণ কথাটা বাস্তবতার সাথে একদমই মিল নেই। একটি বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং নিচে চারজন ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার কাজ করে।

উচ্চশিক্ষার সুযোগ নেই

উচ্চশিক্ষার সুযোগ আছে। বর্তমানে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদের জন্য দেশেও খুব ভালো ভালো ভার্সিটি রয়েছে। ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার চাইলে ইন্ডিয়া, চীন, জাপান থেকেও উচ্চশিক্ষা নিতে পারে।


প্রয়োজনীয় কিছু লিংক।

পলিটেকনিকের সেরা ৫টি ডিপার্টমেন্ট সম্পর্কে জানতে – ক্লিক করুন

পলিটেকনিকে ভর্তি হবার আগে যে তথ্যগুলো জানা উচিত জানতে – ক্লিক করুন

টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কেন করব জানতে – ক্লিক করুন

গার্মেন্টস ওয়াশিং সম্পর্কে জানতে – ক্লিক করুন

Leave a Comment