কাপড়ের ব্যবসা করার নিয়ম

Note. আগেই বলে নিচ্ছি পোস্টটি তাদের জন্য যারা মোটা অংকের মূলধন নিয়ে বসে আছেন কিন্তু কি ব্যবসা করবেন তা খুঁজে পাচ্ছেন না। তাদের জন্য কাপড়ের ব্যবসা করার নিয়ম 

কাপড়ের ব্যবসা করার নিয়ম

মানুষের মৌলিক চাহিদাগুলোর মধ্যে একটি চাহিদা হচ্ছে বস্ত্র। আর দৈনন্দিন জীবনে বস্ত্র সবারই প্রয়োজন। আমরা সবাই জানি বাংলাদেশের রপ্তানি আয়ের এর বেশির ভাগই আসে আমাদের টেক্সটাইল শিল্প খাত থেকে। বাংলাদেশের অনেক টেক্সটাইল কারখানা রয়েছে। ভাই যারা ব্যবসা করতে যাচ্ছেন তাদের জন্য এটি খুবই ভালো খবর। আপনি চাইলে সরাসরি গার্মেন্টস থেকে কাপড় আনতে পারেন।

সারা বাংলাদেশে অনেকগুলো পাইকারি মার্কেট :- নরসিংদী, নারায়ণগঞ্জ, ঢাকা ইসলামপুর, দোহার, কুমিল্লা, ভারত, পাকিস্তান, চীন থেকে আপনি কাপড় সংগ্রহ করতে পারেন। কিন্তু আপনাকে আগে আপনার প্রোডাক্ট ঠিক করতে হবে যে আপনি কি কাপড় নিয়ে ব্যবসা করবেন অথবা কি ধরনের প্রোডাক্ট বাজারে ছাড়তে চান। 

যেমন, ধরুন আপনি গজ কাপড় নিয়ে ব্যবসা করতে চান। তাহলে ব্যবসা শুরু করার আগে কয়েকদিন আপনি গজ কাপড় সম্পর্কে আইডিয়া নিতে পারেন। বিভিন্ন কাপড় সম্পর্কে আইডিয়া দেওয়ার জন্য আপনি ওয়েবসাইট, ফেসবুক, ইউটিউব তাদের সাহায্য নিতে পারেন।

ব্যবসার জন্য যেকোনো একটি প্রোডাক্ট বাছাই করে। আপনি ব্যবসা শুরু করতে পারেন। কিন্তু ব্যবসা শুরু করার আগেই আপনাকে সবকিছু একটি প্ল্যান-প্রোগ্রাম করে নিতে হবে। যে, আপনি আপনার ক্রয় কৃত কাপড় কোথায় বিক্রি করবেন। কাপড়ের ব্যবসা করার নিয়ম – কোথায় বিক্রি করলে আপনার প্রফিট বেশি হবে ইত্যাদি বিভিন্ন প্রসঙ্গ ব্যবসায় নামার পূর্বে আপনাকে ঠিক করে নিতে হবে। কারণ আপনি যেই মূলধন টা ব্যবসার মধ্যে ইনভেস্ট করেছেন এটা যেন কোনোভাবেই ক্ষতির মুখে না পড়ে। 

অতিরিক্ত কিছু কথা :- পাইকারি ব্যবসা করে কোটিপতি হওয়া সম্ভব অনেকেই কোটিপতি হয়েছেন আবার অনেকেই লসের মুখেও পড়েছেন। ব্যবসা করার পাশাপাশি নিজের চরিত্রকেও ঠিক করতে হবে। যদি আপনার চরিত্র উত্তম হয়ে থাকে। কথার মধ্যে মধুরতা থাকে। সত্যবাদী হন।

কাউকে ধোকা না দেন তাহলে আপনি যে কোন ব্যবসা করে খুবই সহজেই অনেক কিছুর মালিক হতে পারবেন। একটা কথা মনে রাখবেন যে, কাউকে ধোকা দিয়ে, কাউকে ঠটিয়ে, কাউকে ক্ষতি করে ধনী হওয়া সম্ভব কিন্তু আপনি যেন তাড়াতাড়ি ধনী হবেন আবার ততো তাড়াতাড়ি ফকির হয়ে যাবেন। এরকম উদাহরণ এখন বর্তমানে আমাদের দেশে অহরহ।

সতর্কতাঃ- যেহেতু ব্যবসায় মূলধন অনেক বেশি তাই অনেক ধোকাবাজের খপ্পরে পড়তে পারেন। আপনি সৎ আপনার সাথে যে ব্যবসা করতে চাই তার মনে ধোঁকাবাজি আছে আপনাকে বুঝতে পারবেন না কিন্তু আপনি ধোকা খেয়ে যাবেন। তাই খুবই সাবধানে, কিছু করার আগেই নিজে একটু প্লান প্রোগ্রাম করে নিবেন যাতে করে কোন বিপদে পড়ার আগেই আপনি তার থেকে উঠে আসতে পারেন।

ব্যবসা সম্পর্কিত যে কোন তথ্য জানতে নিচে কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করুন অথবা কল করুন :- 01648198550

আপনার পছন্দ হতে পারে

পোস্টটি পড়ার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ

আরো ভালো ভালো পোস্ট পেতে টেক্সটাইল বাংলাকে সাবস্ক্রাইব করুন

টেক্সটাইল বাংলায় আপনাকে স্বাগতম!

আপনার লেখা টেক্সটাইল বাংলায় পাবলিশ করবেন কিভাবে?

Share your love
Maruf Sikder
Maruf Sikder

মোঃ মারুফ সিকদার। একজন টেক্সটাইল ইন্জিনিয়ার। টেক্সটাইল ছাত্র ছাত্রীদের কথা বিবেচনা করে শুরু করা টেক্সটাইল বাংলা। ব্যস্ততার পাশাপাশি টেক্সটাইলের বিভিন্ন বিষয়াদি আলোচনা করি টেক্সটাইল বাংলায়। আপনাদের জন্য এই ছোট প্রয়াস যেনো নিয়মিত কিছু করার প্রয়াস যোগায়। অবশ্যই টেক্সটাইল বাংলার সাথে থাকুন।

Articles: 701