পাইকারি কাপড়ের ব্যবসা

Note. আগেই বলে নিচ্ছি পোস্টটি তাদের জন্য যারা মোটা অংকের মূলধন নিয়ে বসে আছেন কিন্তু কি ব্যবসা করবেন তা খুঁজে পাচ্ছেন না। 

মানুষের মৌলিক চাহিদাগুলোর মধ্যে একটি চাহিদা হচ্ছে বস্ত্র। আর দৈনন্দিন জীবনে বস্ত্র সবারই প্রয়োজন। আমরা সবাই জানি বাংলাদেশের রপ্তানি আয়ের এর বেশির ভাগই আসে আমাদের টেক্সটাইল শিল্প খাত থেকে। বাংলাদেশের অনেক টেক্সটাইল কারখানা রয়েছে। ভাই যারা ব্যবসা করতে যাচ্ছেন তাদের জন্য এটি খুবই ভালো খবর। আপনি চাইলে সরাসরি গার্মেন্টস থেকে কাপড় আনতে পারেন।

সারা বাংলাদেশে অনেকগুলো পাইকারি মার্কেট :- নরসিংদী, নারায়ণগঞ্জ, ঢাকা ইসলামপুর, দোহার, কুমিল্লা, ভারত, পাকিস্তান, চীন থেকে আপনি কাপড় সংগ্রহ করতে পারেন। কিন্তু আপনাকে আগে আপনার প্রোডাক্ট ঠিক করতে হবে যে আপনি কি কাপড় নিয়ে ব্যবসা করবেন অথবা কি ধরনের প্রোডাক্ট বাজারে ছাড়তে চান। 

যেমন, ধরুন আপনি গজ কাপড় নিয়ে ব্যবসা করতে চান। তাহলে ব্যবসা শুরু করার আগে কয়েকদিন আপনি গজ কাপড় সম্পর্কে আইডিয়া নিতে পারেন। বিভিন্ন কাপড় সম্পর্কে আইডিয়া দেওয়ার জন্য আপনি ওয়েবসাইট, ফেসবুক, ইউটিউব তাদের সাহায্য নিতে পারেন।

ব্যবসার জন্য যেকোনো একটি প্রোডাক্ট বাছাই করে। আপনি ব্যবসা শুরু করতে পারেন। কিন্তু ব্যবসা শুরু করার আগেই আপনাকে সবকিছু একটি প্ল্যান-প্রোগ্রাম করে নিতে হবে। যে, আপনি আপনার ক্রয় কৃত কাপড় কোথায় বিক্রি করবেন। কোথায় বিক্রি করলে আপনার প্রফিট বেশি হবে ইত্যাদি বিভিন্ন প্রসঙ্গ ব্যবসায় নামার পূর্বে আপনাকে ঠিক করে নিতে হবে। কারণ আপনি যেই মূলধন টা ব্যবসার মধ্যে ইনভেস্ট করেছেন এটা যেন কোনোভাবেই ক্ষতির মুখে না পড়ে। 

অতিরিক্ত কিছু কথা :- পাইকারি ব্যবসা করে কোটিপতি হওয়া সম্ভব অনেকেই কোটিপতি হয়েছেন আবার অনেকেই লসের মুখেও পড়েছেন। ব্যবসা করার পাশাপাশি নিজের চরিত্রকেও ঠিক করতে হবে। যদি আপনার চরিত্র উত্তম হয়ে থাকে। কথার মধ্যে মধুরতা থাকে। সত্যবাদী হন। কাউকে ধোকা না দেন তাহলে আপনি যে কোন ব্যবসা করে খুবই সহজেই অনেক কিছুর মালিক হতে পারবেন। একটা কথা মনে রাখবেন যে, কাউকে ধোকা দিয়ে, ওকে ঠটিয়ে, কাউকে ক্ষতি করে ধনী হওয়া সম্ভব কিন্তু আপনি যেন তাড়াতাড়ি ধনী হবেন আবার ততো তাড়াতাড়ি ফকির হয়ে যাবেন। এরকম উদাহরণ এখন বর্তমানে আমাদের দেশে অহরহ।

সতর্কতাঃ- যেহেতু ব্যবসায় মূলধন অনেক বেশি তাই অনেক ধোকাবাজের খপ্পরে পড়তে পারেন। আপনি সৎ আপনার সাথে যে ব্যবসা করতে চাই তার মনে ধোঁকাবাজি আছে আপনাকে বুঝতে পারবেন না কিন্তু আপনি ধোকা খেয়ে যাবেন। তাই খুবই সাবধানে, কিছু করার আগেই নিজে একটু প্লান প্রোগ্রাম করে নিবেন যাতে করে কোন বিপদে পড়ার আগেই আপনি তার থেকে উঠে আসতে পারেন।

ব্যবসা সম্পর্কিত যে কোন তথ্য জানতে নিচে কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করুন অথবা কল করুন :- 01648198550

আপনার পছন্দ হতে পারে

গার্মেন্টসে পোশাক তৈরি করার জন্য বিভিন্ন কাপড় সমূহ

গার্মেন্টস পোশাক তৈরি করার জন্য বিভিন্ন ধরনের কাপড় ব্যবহার করা হয়। এক এক ধরনের পোশাক তৈরি করার জন্য একেক রকম কাপড় ব্যবহার করা হয়। তাহলে চলুন দেখে নেয়া যাক গার্মেন্টসে পোশাক তৈরি করার জন্য কি কি কাপড় ব্যবহার করা হয়। গার্মেন্টসে পোশাক তৈরি করার জন্য বিভিন্ন কাপড় সমূহ জিন্স (Jeans)গ্যাবার্ডিন (Gabardine)ডেনিম (Denim)ড্রিল (Drill)পপলিন (Poplin)শীটিং (Sheeting)শাটিং…

Continue reading

স্ক্রিন প্রিন্টিং কি এবং কত প্রকার । Screen Printing

স্ক্রিন প্রিন্টিং (Screen Printing) স্ক্রিন প্রিন্টিং পদ্ধতি খুব সহজেই করা যায়। স্ক্রিন প্রিন্টিং করার জন্য প্রথমেই স্ক্রিন তৈরি করতে হয় আর স্ক্রিন তৈরির জন্য বিশেষ ধরনের সিল্ক, কটন অরর্গান্ডি, লাইলন বা পলিয়েস্টার ফাইবারের তৈরি পাতলা কাপড়কে কাঠ বা লোহার তৈরি ফ্রেমে শক্তভাবে আটকিয়ে ডিজাইনের অংশসমূহ ছাড়া অন্যান্য অংশগুলোকে পানি প্রতিরোধে রাসায়নিক পদার্থ দ্বারা বন্ধ করে…

Continue reading

বিভিন্ন পোশাকের তালিকা (ছেলে, মেয়ে, শিশু)

মানুষ লজ্জা নিবারণ করার জন্য শরীরে যা ব্যবহার করে এবং দেহের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে তাকেই মূলত পোশাক বলা হয়। প্রাচীনকাল থেকেই এর ব্যবহার ও চলে আসছে আর পৃথিবী ধ্বংস হওয়ার পূর্ব পর্যন্ত এর ব্যবহার চলবেই।  পোশাককে বিভিন্ন ভাবে ভাগ করা যায় :-  শরীরের উপরিভাগে পোশাক শরীরের নিচের ভাগের পোশাক শরীরের বহির্ভাগের পোশাক শরীরের সাথে লাগানো…

Continue reading

টেক্সটাইল বিজনেস কিভাবে শুরু করবেন

আমাদের দৈনন্দিন জীবনে টেক্সটাইলের গুরুত্ব অনেক বেশি। কারণ অফিসের জন্য স্যুট টাই আবার কোন অনুষ্ঠানে খাদি কাপড়ের তৈরি আউটফিট পোশাক পড়া, স্কুলড্রেস, জিন্স, শাড়ি, ট্রাডিশনাল ড্রেস থেকে ফর্মাল ড্রেস এইসব টেক্সটাইল ইন্ডাস্ট্রি থেকে আসে। আর আজকে টেক্সটাইল বাংলার টিম আপনাদেরকে বলবে, আপনি যদি টেক্সটাইলে আপনার ভবিষ্যৎ গড়তে চান অথবা আপনি যদি নিজের টেক্সটাইল বিজনেস শুরু…

Continue reading

ওয়াশিং মেশিন সম্পর্কে বিস্তারিত

ওয়াশিং মেশিন কি আমরা সবাই জানি ওয়াশিং মেশিন হচ্ছে একটি কাপড় ধোয়ার মেশিন। আরো সাধারণভাবে বলতে গেলে, ওয়াশিং শব্দের অর্থৈ ধৌতকরণ কে বোঝায় আর মেশিন হচ্ছে একটি ডিভাইস যার মাধ্যমে কাপড় ধোয়ার কাজ সম্পন্ন করা হয়। এই মেশিনের সাহায্যে কাপড় ধৌত করলে কোন রকম শারীরিক পরিশ্রম করতে হয় না। শুধুমাত্র মেশিনের মধ্যে যা যা কেমিক্যাল…

Continue reading

ওয়াশিং মেশিনের সুবিধা এবং অসুবিধা

আমরা তো জানি, দৈনন্দিন জীবনে ওয়াশিং মেশিনের প্রয়োজনীয়তা অনেক এবং এরই সাথে ওয়াশিং মেশিনের সুবিধা এবং অসুবিধা গুলোও জানা প্রয়োজন। ওয়াশিং মেশিনের সাবধানতাপড়ুন ওয়াশিং মেশিন নিয়ে কিছু কথাপড়ুন ওয়াশিং মেশিন কেনার সময় লক্ষণীয় বিষয়পড়ুন বর্তমানে শহরের বা গ্রামেগঞ্জে সবাই কর্মমুখর। কাজের পাশাপাশি নিজেকে সুন্দরভাবে পরিপাটি ও রাখতে হয়। ঘরের বাইরে বের হলেই নিজেকে সুন্দর পরিপাটি…

Continue reading

পোস্টটি পড়ার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ

আরো ভালো ভালো পোস্ট পেতে টেক্সটাইল বাংলাকে সাবস্ক্রাইব করুন

Leave a Comment