গার্মেন্টস সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য

গার্মেন্টস শব্দটি খুব পরিচিত একটি শব্দ। আপনিও নিশ্চয়ই কোথাও না কোথাও এই শব্দটি শুনেছেন। আমাদের সমাজে বহু প্রচলিত শব্দের মধ্যে একটি শব্দ গার্মেন্টস। কিন্তু আমরা প্রতিনিয়তই গার্মেন্টস প্রডাক্ট ব্যবহার করে থাকি।

আমরা অনেকেই, গার্মেন্টস এর পণ্য ব্যবহার করি কিন্তু জানিনা যে এটা গার্মেন্টসের পণ্য। চলুন তাহলে দেখে নেয়া যাক গার্মেন্টস কি, গার্মেন্টস কত প্রকার।

গার্মেন্টস হলো মানুষের শরীরে ব্যবহার করার উদ্দেশ্যে কোন পোশাক যা ফেব্রিক্স বা অন্যান্য টেক্সটাইল মেটারিয়ালস দিয়ে তৈরি করা হয়। তৈরিকৃত পোশাকের উপর বিভিন্ন ধরনের নকশা প্যাটার্ন ইত্যাদি যোগ করে কাপড়কে আরও আকর্ষণীয় করে তোলা হয়। অর্থাৎ সহজ করে বললে, মানুষের ব্যবহৃত পোশাক যা ফেব্রিক দিয়ে তৈরি করার পর পরনের জন্য ব্যবহারযোগ্য হয় আবার একে রেডিমেড গার্মেন্টস ও বলা হয়।

যেমন :-

পুরুষের ব্যবহৃত গার্মেন্টস, বহু জনপ্রিয় পোশাক শার্ট, প্যান্ট, ট্রাউজার, ছোট শিশুদের জন্য টোগা ইত্যাদি।

মহিলাদের ব্যবহৃত গার্মেন্টস, বহু জনপ্রিয় পোশাক, থ্রি পিস, বোরকা, স্কার্ট, শাড়ি ইত্যাদি।

উপরে উল্লেখিত উদাহরণগুলো কেই সাধারণত গার্মেন্টস বলা হয়।

গার্মেন্টস এর প্রকারভেদ

গার্মেন্টস এর প্রকারভেদ এর নির্দিষ্ট কোন মানদন্ড নেই। মূলত কিছু জিনিসের উপর ভিত্তি করে শ্রেণীবিভাগ তৈরি করা হয়েছে। চলুন দেখে নেয়া যাক।

কাপড়ের ধরনের ওপর ভিত্তি করে (গার্মেন্টস)

  1. নিট ফেব্রিক (Knit Fabric)
  2. ওভেন ফেব্রিক (Oven Fabric)
  3. নন ওভেন ফেব্রিক (Non Oven Fabric)

নিট ফেব্রিক (Knit Fabric)

নিট ফেব্রিক দ্বারা সাধারনত, টি-শার্ট, গেঞ্জি, সুয়াটার ইত্যাদি তৈরি করা হয়।

ওভেন ফেব্রিক (Oven Fabric)

ওভেন ফেব্রিক দ্বারা সাধারনত, শার্ট, ডেনিম,‌ প্যান্ট তৈরি করা হয়।

নন ওভেন ফেব্রিক (Non Oven Fabric)

নন ওভেন ফেব্রিক দ্বারা সাধারনত, মুজা, বাচ্চাদের ডায়াপার ইত্যাদি তৈরি করা হয়।

সময় এর উপর ভিত্তি করে পোশাক/গার্মেন্টস

সময় বা ঋতুর উপর ভিত্তি করে পোশাক/গার্মেন্টস হল আমরা দেখে থাকি মানুষ ঋতু পরিবর্তনের সাথে সাথে তার পোশাক পরিবর্তন করে। যেমন, গরমের সময় পাতলা কাপড়ের পোশাক টি শার্ট, শার্ট ইত্যাদি পরিধান করে। আর শীতের সময় মোটা কাপড়ের পোশাক পরিধান করে। এরকম  বিভিন্ন ঋতুতে বিভিন্ন ধরনের পোশাক পরিধান করে।

  • শীত কাল (জ্যাকেট)
  • গ্রীষ্ম কাল (ট্যাংটপ)
  • বসন্ত কাল (সিঙ্গলেট)
  • শরৎ কাল (শার্ট)
  • হেমন্ত কাল (শার্ট)

ইভেন্ট এর উপর ভিত্তি করে পোশাক/গার্মেন্টস

যেমন ঋতুর উপর ভিত্তি করে তেমনি ইভেন্টের ওপর ভিত্তি করে ও পোশাক/গার্মেন্টস পরিধান করা হয়।

যেমন, কোথাও কোন ফাংশন চলছে, যখন বিয়ের অনুষ্ঠান, আপনি কোথাও ইন্টারভিউ দিতে যাবেন, ডেটিংয়ে যাবেন ইত্যাদি সময়ের জন্য আলাদা আলাদা পোশাক রয়েছে।

  • পার্টির মধ্যে পরিধান করার জন্য রয়েছে, পার্টি ড্রেস বা পার্টি পোশাক/গার্মেন্টস।
  • ইন্টারভিউ বোর্ডে ইন্টারভিউ দেওয়ার জন্য রয়েছে, ফর্মাল পোশাক/গার্মেন্টস।
  • আবার, ঈদের সময় পড়ার জন্য আলাদা পোশাক রয়েছে।
  • বাৎসরিক বিভিন্ন অনুষ্ঠানের জন্য পড়ার জন্য আলাদা পোশাক রয়েছে।

ব্যবহারের উপর ভিত্তি করে পোশাক/গার্মেন্টস

  • নাইট ড্রেস :- রাতে ঘুমানোর জন্য এই ড্রেস ব্যবহার করা হয়।
  • সুইমিং স্যুট :- পানিতে সাঁতার কাটার জন্য এই ড্রেস ব্যবহার করা হয়। 
  • প্লেইং স্যুট :- খেলাধুলা করার সময় এই সদ্ব্যবহার করা হয়।
  • অন্তবাস ড্রেস :- ব্রা, পেন্টি, আন্ডারওয়ার ইত্যাদি।

উৎপাদনের উপর ভিত্তি করে পোশাক/গার্মেন্টস

  • কোন প্রতিষ্ঠানে পোশাক তৈরি করা
  • সাধারণ দর্জি দিয়ে পোশাক তৈরি করা

উৎসের উপর ভিত্তি করে পোশাক/গার্মেন্টস

  • প্রাকৃতিক জাত পোশাক
  • চামড়াজাত পোশাক

প্রাকৃতিক জাত পোশাক

যেমন :- কটন ইয়ার্ন, উলেন ইয়ার্ন ইত্যাদি প্রাকৃতিক জিনিস হতে তৈরিকৃত সুতা দ্বারা প্রস্তুতকৃত পোশাককে প্রাকৃতিক জাত পোশাক/গার্মেন্টস বলা হয়।

কৃত্তিম পোশাক

যেমন :- পলিয়েস্টার ইয়ার্ন, লাইলন ইয়ার্ন, ইত্যাদি কৃত্রিম জিনিস থেকে হওয়া সুতা দ্বারা প্রস্তুতকৃত কাপড়কে কৃত্রিম পোশাক/গার্মেন্টস বলা হয়।

চামড়াজাত পোশাক

যেমন :- চামড়াজাত পোশাক বলতে, লেদার কে বোঝানো হয়েছে। লেদার দ্বারা তৈরি পোশাককে চামড়াজাত পোশাক/গার্মেন্টস বলা হয়।

আপনার পছন্দ হতে পারে

পোস্টটি পড়ার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ

আরো ভালো ভালো পোস্ট পেতে টেক্সটাইল বাংলাকে সাবস্ক্রাইব করুন

Leave a Comment